Breaking News
Home / অর্থনীতি / মরণ ফাঁদে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীর থেকে গচিহাটার সড়ক!!

মরণ ফাঁদে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীর থেকে গচিহাটার সড়ক!!

মরণ ফাঁদে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীর থেকে গচিহাটার সড়ক!!

কিশোরগঞ্জের, কটিয়াদীর থেকে মুমুরদিয়া হয়ে গচিহাটার সড়কের প্রায় ৭-৮ কিলোমিটার সড়ক যেন ইট-পাথরে ক্ষেতের পরিণত হয়েছে।

দুর্ভোগের আরেক নাম এই কটিয়াদী-গচিহাটা সড়ক। কটিয়াদী থেকে গচিহাটা যাওয়ার একমাত্র সড়কটি এখন মরণ ফাঁদ।

সূত্রে জানা, দীর্ঘদিন থেকে প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে এ সড়কটি বর্তমানে চলাচলের জন্য অযোগ্য হয়ে
পর্যন্ত প্রায় ৭-৮ কিলোমিটার রাস্তা মেরামত না করায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়েই চলাচল করছে বিভিন্ন ছোট-বড় অনেক যানবাহন।

রাস্তা অাশে পাশে ও কটিয়াদীতে গড়ে উঠা বিভিন্ন শিল্পখানা ও হটেরভাটা এবং স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল! এই কারণে হাজার হাজার মানুষে পেটে দায়ে এই সড়ক ব্যবহারে একমাত্র রাস্তা ! আর মাঝে-মধ্যে ঘটে যাওয়া ছোট-বড় দুর্ঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছে নিরীহ পথিকরা।

সংস্কারের অভাবে রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় সামান্য বৃষ্টি হলেই ওইসব গর্তে পানি জমে যায়। এরফলে পথচারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়!

অথচ কটিয়াদীর অাসতে বাঘহাট, নয়াপাড়া, চৈতাভিটা, তেরগাতি, বতিহাটা, গনেরগাঁ, লক্ষিগঞ্জ, মুমুরদিয়া, নাঁগেরগ্রামে, দাসেরগাঁ, তিলকান্দা, কাঠালতলি, নন্দিপুর, বনগ্রামে, বালিরা চোরাস্তা ও গচিহাটাসহ উত্তরাঞ্চল এলাকার লোকজনের কটিয়াদী মেডিক্যাল হাসপাতাল ও স্কুল, কলেজে এবং ব্যাংকে কিংবা বিভিন্ন প্রয়োজনে কটিয়াদী সাথে যোগাযোগের জন্য একটি মাত্র নিভর যোগ্য এই রাস্তাটিই ব্যবহার করতে হয়। 

জনগণে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা হওয়ার পরও তা সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেই কর্তৃপক্ষ!

মুমুরদিয়া গ্রামের অটো চালক মাহফুজ রহমান বলেন,

যে এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য ছোট বড় যানবাহন চলাচল করে থাকে কিন্তু সড়কটি প্রচুর পরিমানে ভাঙ্গা হওয়ায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করা ছাড়া আমাদের আর কোন উপায় নেই।

এতে রাস্তার মাঝে প্রায় যানবাহন বিকল হয়ে পড়ছে। কোথাও কোথাও আবার উল্টে গিয়ে হতাহতের ঘটনাও ঘটেই চলেছে হরহামেশায়।

এলাকার একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসাবে অাব্দুল মান্নান মিয়া (মধু) বলেন: যে অামাদের এই রাস্তা বহুদিন যাবত সংস্কারের অভাবে রাস্তাটিরতে মানুষে চলাচল কষ্ট হচ্ছে!

এবং তিনি দাবি করেন অাওয়ামী-লীগ সরকার ক্ষমতা অাসার পর থেকে এই রাস্তাটা কোন উন্নতি হচ্ছে না!

হাজেরা সুলতান উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিকা “হাজেরা অাক্তার” বলেন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শত শত শিক্ষার্থী এবং সর্বস্তরের জন সাধারণ যাতায়াত এই বিপদগামী রাস্তা দিয়েই যাতায়াত করে থাকেন।

বৃষ্টিতে রাস্তায় পানি জমে থাকার কারণে প্রায়ই যানবাহনের চাকার পানি ছিটকে শিক্ষার্থীসহ সকলের পোশাক পরিচ্ছদ নষ্ট হয়ে যায়।

এতে করে চরম বিব্রতকর পরিস্থিতির শিকার হতে হয় পথচারীদের।

এই ব্যাপারে কটিয়াদী উপজেলা চেয়ারম্যান “জনাব অাব্দুল ওয়াব অাইনউদ্দিন সাহেব” বলেন, এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি রাস্তা। তাই বৃহত্তর স্বার্থে অতিদ্রুত রাস্তাটি প্রয়োজনীয় সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

তাছাড়া ও এলাকাবাসীরা জানায় কিছু দিন পর পর রাস্তা মাপ জরিপ কাজ করে! কিন্তু রাস্তা কোন উন্নতি হচ্ছে না! বরং দিন দিন রাস্তার অবস্থা খারাপে দিকে যাছে!

সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রাস্তাটির বেহাল দশা সম্পর্কে জনগণের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের ও সরকারে দৃষ্টি অাকষণ করছে! এর সাথে ভাল এবং সুন্দর ভাবে রাস্তা তৈরি জন্য সরকারে কাছে সবেনয় অনুরুধ জানাচ্ছে!

          !!! এলাকার সবস্তরে জনগন  !!!

অাসুন অামরা যারা কটিয়াদী এবং অাশে পাশে এলাকা বসবাসকারী মানুষ! তারা সবাই একজুট হয়ে সরকারে কাছে সবেনয় অনুরুধ জানায়! এবং সকলে পোষ্টটা তে লাইক, কমেন্ড ও শেয়ার করে সরকারি দৃষ্টি অাকষণ করি!

কেননা অাপনার ও শেয়ার করাতে সরকারি কম-কতাদের দৃষ্টি পড়তে পারে! অার অাপনার মুল্যবান মন্তব্য করতে ভুলবেনা! অাপনার মতামতে অামাদের মাঝে লেখার অাগ্রহ বাড়ায়!!!

;বিঃদ্রঃ দেশ বিদেশে ঘটে যাওয়া নিত্য নতুন সব ধরনের খবর পেতে “বাংলা নিউজ সেন্টার”এই লিংক
https:www.facebook.com/banglanewscenter/ পেইজটিতে লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন].

  ” Bangla News Center”

Leave a Reply

Your email address will not be published.